রূপালী ব্যাংক লোন সমূহ

রূপালী ব্যাংক লোন সমূহ

আসসালামু আলাইকুম, আশা করি ভাল আছেন । ব্যাংক থেকে লোন নেওয়া খুবই একটা ঝামেলার । ব্যাপার অনেক সময় দেখা যায় যাদের লোন প্রয়োজন তারা অনেক ঘোরাঘুরি করে, অনেক ব্যাংকে গিয়েও লোন পান না । অথবা অনেকে জানেন না ব্যাংক কোন কোন বিষয়ে লোন দিয়ে থাকে।  তাই আমরা আজকের এই পোস্টে রূপালী ব্যাংক এর লোন সিস্টেম নিয়ে আলোচনা করব।

 আজকের পোস্টে আমরা শুধু দেখবো রূপালী ব্যাংক কোন কোন ক্ষেত্রে লোন দেয় ,লোনের সময় সময়সীমা, সুদের হার , লোন পাওয়ার জন্য গ্রাহকের কি কি থাকতে হবে বা কি কি কাগজপত্র প্রয়োজন হবে, আবেদনের প্রক্রিয়া ইত্যাদি ।

তো চলুন আর বেশি কথা না বলে রূপালী ব্যাংকের সকল প্রকার ঋণ স্কিম সম্পর্কে দেখা যাক । আপনার কোন বিষয়ে লোন দরকার সেই বিষয় সম্পর্কে নিচে থেকে দেখে নিতে পারেন ।

রূপালী ব্যাংক কৃষি লোন 

কৃষি ক্ষেত্রে সহায়তা করার জন্য রূপালী ব্যাংকের বিভিন্ন ধরনের লোন স্কিম রয়েছে । 

কৃষিক্ষেত্রে নতুন প্রযুক্তির ব্যবহার, আমদানির্ভর ফসল উৎপাদন বাড়ানো ,নতুন নতুন ফসলের জাতের বীজ আমদানি করা ছাড়াও নানারকম সহায়তার জন্য রূপালী ব্যাংক ঋণ দিয়ে থাকে। 

রূপালী ব্যাংকের বিভিন্ন ধরনের কৃষি স্কিম সম্পর্কে নিচে আলোচনা করা হলো ।

  1. শস্য ঋণ 

বিভিন্ন ধরনের শস্য ফসল যেমন: ধান ,গম ,ভুট্টা , সরিষা প্রভৃতি উৎপাদনের জন্য এই ঋণ দেওয়া হয়ে থাকে । এই লোনের পরিমাণ পাঁচ হাজার টাকা থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ ৩৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত হয়ে থাকে । যা ছয় মাস থেকে তিন বছরের মধ্যে ৮% সুদে পরিশোধ করতে হবে।

  1. আমদানি নির্মাণ ফসল উৎপাদন লোন

আমদানি নির্ভর ফসল দেশে উৎপাদন করে আমদানির উপর চাপ কমানোর জন্যই মূলত এই ঋণ দেওয়া হয় । কৃষকদের আমদানি নির্ভর ফসল যেমন: ধান ,গম ,ভুট্টা, সয়াবিন প্রভৃতি দেশের মধ্যে অধিক পরিমানে উৎপাদন করার জন্য উৎসাহ দেওয়াই মূল উদ্দেশ্য।

লোনের পরিমাণ পাঁচ হাজার টাকা থেকে শুরু করে ৫ লক্ষ ৯৭ হাজার ২৬৫ টাকা পর্যন্ত হয়ে থাকে। যা সর্বোচ্চ এক বছরের মধ্যে ৮% সুদে ( যার মধ্যে চার শতাংশ গ্রাহককে দিতে হবে এবং বাকি চার শতাংশ বাংলাদেশ ব্যাংক ভর্তুকি দিবে) এক বছরের মধ্যে পরিশোধ করতে হবে। 

  1. নার্সারি এবং গাছ লাগানোর জন্য লোন

ছোট থেকে বড় আকারের জায়গায় গাছ লাগানো কিংবা বিভিন্ন ফল, ফুল বা গাছের চারার নার্সারি করার জন্য এই ঋণ দেওয়া হয়ে থাকে।

ঋণের পরিমাণ পাঁচ হাজার টাকা থেকে শুরু করে ৩৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত হয়ে থাকে যা ছয় মাস থেকে তিন বছরের মধ্যে ৮% সুদে পরিশোধ করতে হবে।

  1. শস্য গুদামজাত প্রকল্প ঋণ

শস্য কিনে গুদামজাত করে রাখার জন্য রূপালী ব্যাংক ঋণ দিয়ে থাকে । ভবিষ্যৎ খাদ্য নিরাপত্তা রক্ষা করাই এই ঋণ দেওয়ার মূল উদ্দেশ্য।

ঋণের পরিমাণ পাঁচ হাজার টাকা থেকে শুরু করে ছয় লক্ষ টাকা পর্যন্ত। যা আট শতাংশ সুদে ছয় মাস থেকে তিন বছরের মধ্যে শোধ করতে হবে।

  1. সুদমুক্ত লোন

কিছু বিশেষ ধরনের ফসল ফলানোর জন্য রূপালী ব্যাংক সুদমুক্ত দিয়ে থাকে। বিভিন্ন ধরনের ফসল উৎপাদনের জন্য ভবিষ্যতে ঋণ দেওয়া হবে কিন্তু বর্তমানে শুধু টমেটো উৎপাদনের জন্য এই ঋণ দেওয়া হচ্ছে এবং অতি সত্তর আম উৎপাদনের জন্য এই ঋণ দেওয়া হবে।

লোনের পরিমান পঞ্চাশ হাজার টাকা থেকে শুরু করে নয় লক্ষ টাকা পর্যন্ত । যা বিনা সুদে ছয় মাস থেকে এক বছরের মধ্যেই পরিশোধ করতে হবে।

রূপালী ব্যাংক হোম লোন

রূপালী ব্যাংকের হোম লোন সম্পর্কে লিখতে গেলে অনেক বড় হয়ে যাবে । রূপালী ব্যাংক সাধারণ মানুষ, বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তা, সরকারি কর্মকর্তা – কর্মচারী, বিশ্ববিদ্যালয় এর কর্মকর্তা – কর্মচারীদের জন্য আলাদা আলাদা লোন স্কিম রয়েছে । সেগুলো সম্পর্কে জানতে নিচের লেখাটি পড়ে নিতে পারেন।

রূপালী ব্যাংক ব্যাবসায়ী লোন 

ব্যবসায়ীদের ব্যবসা কাজের জন্য এবং ব্যবসা পণ্য উৎপাদনের জন্য এই লোন দেওয়া হয়ে থাকে। ঋণের পরিমাণ সর্বোচ্চ ৫ কোটি টাকা ৯% সুদে পরিশোধ করতে হবে পরিশোধের সময় নির্দিষ্ট নয় ব্যাংক থেকে বলে দেওয়া হবে।

মাঝারি ঋণ 

মাঝারি শিল্প এবং ম্যানুফ্যাকচারিং এর জন্য মাঝারি ঋণ দেওয়া হয় । এক্ষেত্রে ঋণের পরিমাণ সর্বোচ্চ ৭৫ কোটি টাকা দেওয়া হয় । যা ১২০ মাসের মধ্যে নয় শতাংশ সুদে পরিশোধ করতে হবে ।

রূপালী ব্যাংক পেশাজীবি লোন 

ক্ষুদ্র শিল্প প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলার জন্য নতুন উদ্যোক্তাদের এই ঋণ দেওয়া হয়ে থাকে।  যা ৬০ মাসের মধ্যে ৯ শতাংশ সুদ হারে পরিশোধ করতে হয়।

সহজ ঋণ 

ক্ষুদ্র কুটির শিল্প থেকে শুরু করে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র শিল্প প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলার জন্য সহজ দেওয়া হয় । সুদের হার 9 শতাংশ সর্বোচ্চ ৪৮ মাসের মধ্যে পরিশোধ করতে হয়। সর্বোচ্চ ১০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ঋণের পরিমাণ হয়ে থাকে।

সুলভ ঋণ 

এই ঋণ স্কিমটিও ক্ষুদ্র ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বা শিল্প প্রতিষ্ঠানকে দেওয়া হয়ে থাকে। ঋণের পরিমাণ সর্বোচ্চ ২ কোটি টাকা ৯৬ মাসের মধ্যে পরিশোধ করতে হয়।

আমার শেষ কথা 

আজকে আমি রূপালী ব্যাংকের সকল প্রকার ঋণ স্কিম সম্পর্কে একটি ধারণা দেওয়ার চেষ্টা করেছি। 

আশা করি আপনারা উপকৃত হবেন ।আর এই পোস্টে যতটা সহজ ভাবে লেখা হয়েছে, আসলে ঋণ পাওয়া এতটা সহজ নয় ।অনেক অনেক ঝামেলা হয় ।

 আর উপরে উল্লেখিত টাকার পরিমাণ সময় কিংবা সুদের হার সময়ের সাথে পরিবর্তন হতে পারে তাই সঠিক তথ্যের জন্য সব সময় আপনার নিকটস্থ রূপালী ব্যাংকের কোন শাখায় যোগাযোগ করবেন। 

2 thoughts on “রূপালী ব্যাংক লোন সমূহ”

  1. Pingback: ব্র্যাক ব্যাংক লোন পদ্ধতি - NurPost

  2. Pingback: রূপালী ব্যাংক ডিপিএস | Rupali bank DPS - NurPost

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Share via
Copy link
Powered by Social Snap