মোবাইল দিয়ে অনলাইনে কলেজে ভর্তি আবেদন করার নিয়ম

মোবাইল দিয়ে অনলাইনে কলেজে ভর্তি আবেদন করার নিয়ম

আমাদের দেশে এখন অনলাইনে কলেজে ভর্তির আবেদন করা যায় ।

একাদশ শ্রেণীতে কলেজ চয়েস দেওয়ার ক্ষেত্রে এখন আমরা ঘরে বসেই; আমাদের হাতে থাকা মোবাইল ফোন দিয়েই কলেজ চয়েস দিতে পারি ।

আসুন আজকের এই পোস্টে আমরা জানব কিভাবে হাতে থাকা মোবাইল দিয়ে কলেজ চয়েস দিতে হয় ।

আরো পড়ুন, সহজে ইংরেজি থেকে বাংলা অনুবাদ করার নিয়ম ( অনুবাদ করার অ্যাপ সমূহ )

অনলাইনে কলেজে ভর্তি আবেদন করার নিয়ম

বেশ কয়েকটি ধাপের মাধ্যমে আমরা আজকে এই সম্পূর্ণ পদ্ধতিটি জানবো ।

প্রতিটি ধাপেই ছোট ছোট করে ছবিসহ দেখানো হবে । 

আসুন সময় নষ্ট না করে শুরু করা যাক ।

ফী প্রদান

আমরা হয়তো সকলেই জানি কলেজ চয়েস দেওয়ার জন্য একটা নির্দিষ্ট ফিবা টাকা দিতে হয় ।

যার পরিমাণ ১৫০ টাকা ।

প্রথমেই আমাদের যে কোন মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে এই ফী প্রদান করতে হবে ।

যেকোনো মোবাইল ব্যাংকিং দিয়েই পরিশোধ করা যাবে ।

যেহেতু সবাই  বিকাশ ব্যবহার করে তাই আমি বিকাশ দিয়ে দেখাচ্ছি ।

প্রথমে বিকাশ অ্যাপ এ প্রবেশ করবেন । 

তারপর pay bill এ ক্লিক করবেন ।

এবার এখানে xi লিখে সার্চ করবেন ।

এবার দেখবেন xi Class Admission নামে একটি অপশন এসেছে এটার উপর ক্লিক করুন ।

বিকাশ পে বিল অপশন এ সার্চ

এবার এখানে আপনার বোর্ডের নাম , এসএসসি পাস করার সাল, আপনার এসএসসি রোল নম্বর এবং একটি সচল মোবাইল নম্বর দিবেন ।

তারপর Proceed to pay তে ক্লিক করে , বিকাশ পিন নম্বর দিয়ে পেমেন্ট করে দিবেন ।

বিকাশ পে বিল অপশন এ তথ্য দেওয়া
বিকাশ পে বিল অপশন এ পেমেন্ট দেওয়া

প্রয়োজনীয় তথ্য দেওয়া 

এবার এই লিংকে ক্লিক করুন

ক্লিক করলে নিচের মতো একটি পেজে আপনি চলে যাবেন এখানে এপ্লাই নাও লেখাতে ক্লিক করতে হবে ।

এবার একটি নতুন পেজে আপনি চলে আসবেন ।

একটু নিচের দিকে গেলেই দেখবেন এসএসসি পরীক্ষার রোল নম্বর, বোর্ডের নাম, পাশের বছর এবং রেজিস্ট্রেশন নম্বর চাইছে ।

সুন্দরভাবে সেগুলো দিয়ে ক্যাপচার কোড পূরণ করে Next লেখাতে ক্লিক করুন।

তথ্য দিন

সবকিছু ঠিকঠাক দিলে আপনার সকল তথ্য দেখাবে ।

এবার এবার একটু নিচের দিকে গেলে দেখতে পাবেন ।

ফোন নম্বর, আপনার অভিভাবকের জাতীয় পরিচয় পত্র এর নম্বর এবং আপনার অভিভাবকের সাথে সব সম্পর্ক জানতে চাইছে ।

সব কিছু দেখে, তথ্য দিন

সেগুলো সুন্দরভাবে পূরণ করে নেক্সট এ ক্লিক করবেন।

কলেজ সিলেক্ট করা 

এবার এই হলো মূল কাজ ।

এবারে আপনাকে আপনার পছন্দনীয় যেসব কলেজে আপনি চয়েস দিতে চান সেগুলো সিলেক্ট করতে হবে ।

বলে রাখি আপনি সর্বোচ্চ ১০ টি এবং সর্বনিম্ন পাঁচটি কলেজ সিলেক্ট করতে পারবেন ।

আমি দশটি কলেজ সিলেক্ট করার পরামর্শ দিব; যেহেতু করা যায় তাই আর কি ।🙃

আপনি বর্তমানে যে পেইজে রয়েছেন সেখানে একটু নিচে বাম পাশে দেখবেন ।

এখানে বোর্ড, জেলা, থানা এবং কলেজের নাম সিলেক্ট করে দিবেন ।

তারপরে কোন শিফটে পড়তে চান  কোন ভার্সনে, কোন গ্রুপে পড়তে চান এবং যদি কোন কোটা থাকে সেগুলো দিয়ে এড কলেজ লেখায় ক্লিক করুন  

তাহলে আপনি আপনার পছন্দনীয় কলেজ চয়েস দিতে পারবেন ।

কলেজ সিলেক্ট করুন
মোবাইল দিয়ে অনলাইনে কলেজে ভর্তি আবেদন চয়েস লিস্ট

এভাবে একটি একটি করে পাঁচ থেকে সর্বোচ্চ দশটি কলেজ আপনি দিতে পারবেন ।

অনলাইনে কলেজে ভর্তি আবেদন এর অ্যাপ্লিকেশন সাবমিট করা

আপনি যদি সঠিকভাবে কলেজ চয়েস দিয়ে থাকেন ।

তাহলে এবার আপনাকে আপনার অ্যাপ্লিকেশনটি সাবমিট করতে হবে ।

এর জন্য ডান পাশে নিচে দেখুন লাল রঙে লেখা আছে প্রিভিউ অ্যাপ্লিকেশন তার উপর ক্লিক করুন ।

ক্লিক করলে নিচের মতো দেখতে পারবেন

সাবমিট অ্যাপ্লিকেশন

এবার আপনি আপনার অ্যাপ্লিকেশনটি সাবমিট করতে পারবেন । 

সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে সাবমিট অ্যাপ্লিকেশনে ক্লিক করুন ।

এবার আপনার সাবমিট করা হয়ে গেছে ।

এখান থেকে প্রিন্ট ভার্সনে ক্লিক করে পিডিএফ ফাইলটি ডাউনলোড করে নিবেন ।

প্রিন্ট ভার্সন ডাউনলোড করা
প্রিন্ট
মোবাইল দিয়ে অনলাইনে কলেজে ভর্তি আবেদন ডাউনলোড

তারপর কোন কম্পিউটারের দোকান থেকে পিডিএফ ফাইলটি প্রিন্ট করে নিজের কাছে রেখে দিবেন ।

সাবমিট করার সাথে সাথেই আপনার ফোনে একটি এসএমএসে একটি কোড যাবে ।

সেটি আপনি রেখে দিবেন ভবিষ্যতে যদি আপনি আপনার কলেজ চয়েস এর লিস্ট পরিবর্তন করতে চান তখন ওই কোডটির প্রয়োজন হবে । 

আপনি চাইলে কলেজ চয়েস এর লিস্ট পরিবর্তন করতে পারবেন।

কলেজ চয়েজ লিস্ট কেন গুরুত্বপূর্ণ

আপনি কলেজ চয়েস দেওয়ার সময় লিস্টে কলেজগুলোকে যেই ক্রম অনুসারে দিয়েছেন এটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ ।

কারণ এখানে আপনি যখন একটি কলেজ চান্স হয়ে যাবে এবং কলেজটি কনফার্ম করবেন  

তখন থেকে আপনার অটো মাইগ্রেশন অন হয়ে যাবে ।

অটো মাইগ্রেশন হলো,

 মনে করেন আপনি যে লিস্ট অনুসারে চয়েস দিয়েছেন সেখানে তৃতীয় কলেজে আপনার চান্স হয়েছে ।

এবং আপনি সেখানে ভর্তি হলেন ।

প্রথম ও দ্বিতীয়তে আপনার চান্স হয়নি ।

কিন্তু পরে দেখা গেল দ্বিতীয় কলেজে কয়েকজন ভর্তি হয়নি ।

তাই সেখানে কিছু সিট খালি রয়েছে ।

তখন যদি আপনার মার্কস দিয়ে আপনি ওখানে টিকতে পারেন ।

তখন আপনি অটোমেটিক মাইগ্রেশনের মাধ্যমে ওই কলেজে ভর্তি হতে পারবেন ।

সেক্ষেত্রে নতুন করে কোন ভর্তির ফি দিতে হবে না ।

চান্স হলে কলেজ কনফার্ম করা

কোন একটি কলেজে আপনার চান্স হয়ে গেল ।

আপনি চাইলে ওই কলেজ কনফার্ম করতে পারবেন ।

আপনাকে নির্দিষ্ট একটা ফী দিয়ে কলেজটি কনফার্ম করতে হবে ।

আপনি যদি সেকেন্ড টাইমের জন্য আবেদন করতে চান ।

শেষ কথা 

আজকে আমরা জানলাম অনলাইনে কলেজে ভর্তি আবেদন করার পদ্ধতি ।

দিন দিন সবকিছুই উন্নত হচ্ছে ।

আমাদেরও এই ভাবেই উন্নত হওয়া প্রয়োজন ।

একজন এসএসসি পাস করে যদি নিজেই নিজের মোবাইল দিয়ে করলে ভর্তির আবেদন করতে না পারে ।

তাহলে ব্যাপারটি খুবই খারাপ দেখায় ।

অনেকেই দেখা যায় কলেজে ভর্তির জন্য কম্পিউটারের দোকানে যান ।

তাই আর যাতে সেখানে যেতে না হয় ।

নিজে নিজেই এখন থেকে আপনি আপনার এবং আপনার আশেপাশের বন্ধুদের কলেজের চয়েজ দিয়ে দিতে পারবেন ।

আজকের পোস্টটি ভাল লাগলে শেয়ার করে নিজের কাছে রেখে দিবেন এবং বন্ধুদের কেউ জানাবেন । 

আবার নতুন কোন পোস্ট নিয়ে দেখা হবে সেই পর্যন্ত ভালো থাকবেন । 

ধন্যবাদ। 

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Share via
Copy link
Powered by Social Snap