হোয়াইট ব্লাড সেল বাড়লে কি হয় ?

হোয়াইট ব্লাড সেল বাড়লে কি হয়

হোয়াইট ব্লাড সেল বাড়লে কি হয় হোয়াইট ব্লাড সেল (WBC) বা লক্ষুণী কণিকা হলো আমাদের রক্তে থাকা একটি সেলুলার উপকণিকা। WBC-এর প্রধান কাজ হলো রোগের জীবাণুগুলি বা অন্যান্য পথোজেনের সংক্রমণের বিরুদ্ধে মানসম্পন্ন প্রতিষ্ঠান করা।

 

এই কারণেই হোয়াইট ব্লাড সেলগুলি রোগের প্রতিক্রিয়া বা রোগের দমনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

 

যখন হোয়াইট ব্লাড সেলের সংখ্যা বা সংখ্যার অন্তর বিপর্যয় ঘটে এবং তা বাড়তে থাকে, তখন সেটা হয় “হাইপারলেউকোসাইটোসিস” (leukocytosis) বা উচ্চ লক্ষুণী কণিকা সংখ্যা।

 

এটা ধারণ করা যায় এরকম অবস্থার মধ্যে আমাদের দেহে কোনো ইনফেকশন, অ্যালার্জি, প্রতিস্থাপন যন্ত্রণা বা অন্যান্য শারীরিক পরিবর্তন ঘটছে।

 

অন্যদিকে, কিছু আক্রান্তি, সংক্রমণ, নির্দেশিকায় প্রেশাগ্রস্থ হয়ে এসেছে তখন হোয়াইট ব্লাড সেলের সংখ্যা কম পাওয়া যায় এবং এই অবস্থাকে “লোকোসাইটোপেনিয়া” (leukopenia) বলা হয়।

 

হোয়াইট ব্লাড সেল বাড়লে কি হয় ?

হোয়াইট ব্লাড সেলের সংখ্যা প্রয়োজনে বাড়তে পারে যখন আপনি যন্ত্রণা, আক্রান্তি, অ্যালার্জি, রক্তচাপ কম হওয়া, অন্যান্য অস্থিতির চেষ্টা করছেন বা কিছু ঔষধ বা চিকিৎসামূলক পদার্থ নিয়েছেন।

 

এছাড়াও, কিছু মেডিক্যাল অবস্থা বা সমস্যা যেমন ক্যান্সার, সার্কোইডোসিস, হাইপারটিরয়োইডিজম, হিপারসেন্সিটিভিটির ব্যাপারে ওভাররিঐক্টিভ থাকতে পারে হোয়াইট ব্লাড সেল বা লক্ষুণী কণিকা সংখ্যা বাড়ানোর জন্য।

যেকোনো লক্ষণ বা সমস্যা থাকলে হোয়াইট ব্লাড সেলের সংখ্যা পরীক্ষা ও নিশ্চিত করার জন্য উপযুক্ত চিকিত্সা পেতে হবে।

তাছাড়া, প্রতিদিনের স্বাস্থ্যসম্পর্কিত কাজের জন্য পর্যাপ্ত পুষ্টি পাচ্ছেন, নিয়মিত ব্যায়াম করছেন।

 

নিয়মিতভাবে নিজের স্বাস্থ্যসম্পর্কিত যত্ন নিয়ে চলছেন সেটা সহজেই হোয়াইট ব্লাড সেলের সংখ্যার মধ্যে যথার্থ বিভিন্নতা পুষ্টি করতে পারে।

 

হোয়াইট ব্লাড সেল কেন বাড়ে?

হোয়াইট ব্লাড সেলের সংখ্যা বাডতে পারে কারণ একটি পর্যায়ক্রমে সমস্যা বা বিশেষ পরিস্থিতির সাথে সংযোগ রাখতে পারে।

নিম্নলিখিত কিছু কারণসমূহ হতে পারে:

 

ইনফেকশন

যখন আপনি কোনো ইনফেকশনে আক্রান্ত হন, যেমন ব্যাকটেরিয়াল ইনফেকশন, ভাইরাল ইনফেকশন বা ফঙ্গাল ইনফেকশন, তখন আপনার শরীরে ইনফেকশন মেলা বৃদ্ধির জন্য হোয়াইট ব্লাড সেলের সংখ্যা বাড়তে পারে।

হোয়াইট ব্লাড সেল কেন বাড়ে

এটি আপনার শরীরের প্রতিক্রিয়া হিসাবে পরিচালিত হয় যাতে ইনফেকশনের জীবাণুগুলি মেলা হয়ে নষ্ট করা যায়।

 

ইনফ্লামেশন ও অ্যালার্জি

যখন আপনি যন্ত্রণামূলক অবস্থায় থাকেন, যেমন জ্বর, অ্যালার্জি বা অন্যান্য অস্থিতির উপস্থিতি, তখন হোয়াইট ব্লাড সেলের সংখ্যা বাড়তে পারে।

 

এটি ইনফ্লামেশন প্রতিক্রিয়া এবং অ্যালার্জিক প্রতিক্রিয়ার অংশগ্রহণের জন্য প্রয়োজনীয়।

 

হেমলাইমফ্যাটিক সিস্টেম রোগ

কিছু মেডিক্যাল অবস্থা যেমন লিউকেমিয়া (ক্যান্সারের একটি ধরণ), লিম্ফোমা (লিম্ফ সংক্রমণের একটি ধরণ), এবং অন্যান্য হেমলাইমফ্যাটিক সিস্টেমের সমস্যা হলে হোয়াইট ব্লাড সেলের সংখ্যা বৃদ্ধি হতে পারে।

 

ঔষধ বা চিকিৎসামূলক পদার্থ

কিছু ঔষধ বা চিকিৎসামূলক পদার্থ, যেমন স্টেরয়োইডস, এন্টিবায়োটিকস বা অন্যান্য ঔষধ বিশেষ পরিষ্কার করে, হোয়াইট ব্লাড সেলের সংখ্যা বাড়াতে পারে।

 

এইভাবে, হোয়াইট ব্লাড সেলের সংখ্যা বাডতে পারে বিভিন্ন কারণের ফলে, যেমন ইনফেকশন, ইনফ্লামেশন, হেমলাইমফ্যাটিক সিস্টেমের রোগ বা ঔষধ ব্যবহার।

 

এই পরিস্থিতিতে শরীর হোয়াইট ব্লাড সেলের বৃদ্ধি করে শরীরে রোগজনিত পরিস্থিতিগুলি মিটানোর চেষ্টা করে।

 

তবে, কোনো প্রতিসাম্প্রদায়িক পরিস্থিতির জন্য হোয়াইট ব্লাড সেলের বৃদ্ধি অগ্রাধিকার করা উচিত নয়।

 

যদি হোয়াইট ব্লাড সেলের সংখ্যা অস্বাভাবিকভাবে বা অনুপাতে বৃদ্ধি দেখা দিয়ে তাহলে একজন চিকিত্সকের পরামর্শ নিতে উচিত।

 

হোয়াইট ব্লাড সেল বাড়লে কমার বুদ্ধি কি?

হোয়াইট ব্লাড সেল বাড়লে কমার বুদ্ধি সম্পর্কে কোনো প্রমাণিত পরিস্থিতি নেই।

ব্লাড সেল বাড়লে সাধারণত এর মাধ্যমে শরীরের রোগজনিত অবস্থা ও ইনফেকশনের প্রতিক্রিয়া নির্দেশিত হয়।

সবচেয়ে কাছাকাছি থাকা হোয়াইট ব্লাড সেলের বৃদ্ধি রোগ পর্যায়ক্রমে একটি চিকিত্সাৎমধ্যের অস্থায়ী সাধারণ অবস্থা হিসাবে পরিবর্তিত হতে পারে এবং সেই সময় একটি মানসিক প্রভাব সৃষ্টি করতে পারে।

এই মানসিক প্রভাবের মধ্যে একটি সম্ভাব্য পরিবর্তন হতে পারে যা বুদ্ধির বা মানসিক ক্ষমতার ক্ষয় বা অস্থিতি নির্দেশ করে না।

 

হোয়াইট ব্লাড সেল বাড়লে কি হয়

তবে, হোয়াইট ব্লাড সেলের সংখ্যা বাড়ানোর জন্য কোনো মেডিক্যাল পদক্ষেপের ফলে মানসিক পরিবর্তন দেখা দেওয়া সম্ভব নয়। মানসিক ক্ষমতা বা বুদ্ধি সম্পর্কিত সমস্যা থাকলে।

সেই সমস্যার কারণ অন্য কারণের সঙ্গে সম্পর্কিত হতে পারে, যেমন মানসিক স্বাস্থ্য বা মনোবিজ্ঞানিক সমস্যা।

 

একজন চিকিত্সকের সাথে পরামর্শ করা উচিত যদি কোনো মানসিক সমস্যার সন্দেহ থাকে বা কোনো বিষয়ে চিন্তা থাকে।

 

 

শ্বেত রক্তকণিকা বেড়ে গেলে কি করবেন

শ্বেত রক্তকণিকা বেড়ে যাওয়া অবস্থায় প্রাথমিকভাবে আপনাকে কিছু করতে হতে পারে। এখানে কিছু গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ নিচ্ছি:

 

চিকিৎসকের সাথে যোগাযোগ করুন

শ্বেত রক্তকণিকা বেড়ে গেলে সঠিক পরামর্শের জন্য আপনার চিকিৎসকের সাথে যোগাযোগ করুন। তিনি আপনার সমস্যার কারণ ও উপচার পরামর্শ দিতে পারবেন।

 

আরাম করুন

যখন শ্বেত রক্তকণিকা বেড়ে যায়, আপনার শরীর ক্ষতিগ্রস্থ হয়ে যায়। আপনার শরীরের পুনরুদ্ধার করার জন্য উপযুক্ত আরাম নিন। বিশ্রাম নিন, অতিরিক্ত শ্রম থেকে বিরত থাকুন এবং শারীরিক কার্যকলাপ সীমাবদ্ধ রাখুন।

 

নিয়মিত পরীক্ষা করুন

আপনি নিয়মিতভাবে আপনার শ্বেত রক্তকণিকার পরিমাণ মেয়াদ অতিক্রম করে থাকলে বা আপনি শ্বেত রক্তকণিকার সাথে অন্যান্য লক্ষণগুলি দেখলে, আপনাকে নিয়মিত চেকআপ করতে হবে। চিকিৎসক নির্ধারণ করবেন যে আপনার কি অতিরিক্ত পরীক্ষা বা চিকিত্সা প্রয়োজন হবে।

 

আপনার খাবারের যথাযথ যত্ন নিন

আপনি শ্বেত রক্তকণিকার সময় স্বাস্থ্যকর খাবার খাবার প্রয়োজন হতে পারে।

 

তাই আপনার খাবারের পণ্যের সঠিক মাত্রা ও পুরোপুরি নিশ্চিত হয়ে নিন। তরল ও সুস্থ খাবার খেতে সাহায্য করতে পারে।

 

উপরোক্ত পরামর্শগুলি অনুসরণ করলেই আপনি সঠিক সময়ে উচ্চ শ্বেত রক্তকণিকা সমস্যাটি সমাধান করতে পারেন।

চিকিৎসকের পরামর্শ ও নির্দেশিকা অবশ্যই মেনে চলুন এবং নিয়মিত চেকআপ করার জন্য অবিচ্ছিন্নভাবে সম্পর্ক রাখুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *