কিভাবে ইউটিউব থেকে টাকা আয় করা যায়

কিভাবে ইউটিউব থেকে টাকা আয় করা যায় ।

ইউটিউবে ভিডিও বানিয়ে অনলাইনে ইনকাম করা যায় । সেটা হয়তো আমরা সবাই জানি । কিন্তু আমাদের অনেকেরই ইউটিউব চ্যানেল নেই । তাই কিভাবে ইউটিউব থেকে ইনকাম করা যায় । এই বিষয়ে আমাদের মনে প্রশ্ন জাগে ।

ইউটিউবিং এখন একটি পেশায় পরিণত হয়ে গিয়েছে । অনেকে ক্যারিয়ার হিসেবে এটিকে বেছে নিয়েছে । ইউটিউবে ভিডিও তৈরি করা এখন অনেকের পেশা ।

ইউটিউব থেকে ইনকামের পরিমাণটা অনেক ভালো । তাই অনেকেই ক্যারিয়ার হিসেবে ইউটিউবিং করা বেছে নিতে চায় ।

আজকের এই আর্টিকেল এর মাধ্যমে আমরা জানবো কিভাবে ইউটিউব থেকে ইনকাম করা যায় ।

ইউটিউব চ্যানেল খোলা

Youtube থেকে ইনকাম করার জন্য সর্বপ্রথম আপনাকে একটি youtube চ্যানেল খুলতে হবে । ইউটিউব চ্যানেল খোলা ইউটিউব থেকে ইনকাম করার পূর্বশর্ত । ইউটিউবে চ্যানেল না থাকলে আপনি ইনকাম করতে পারবেন না ।

প্রথমে ইউটিউবে চ্যানেল খুলতে হবে এবং সেখানে নিয়মিত ভিডিও আপলোড করতে হবে । যে কোন একটি বিষয়কে ঠিক করে নিয়ে সেই বিষয়ে ইউটিউবে ভিডিও আপলোড দিতে হবে । 

ঠিকমতো এবং ভালো কোয়ালিটির ভিডিও ইউটিউবে আপলোড করতে থাকলে । ধীরে ধীরে আপনার ভিউজ এবং ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইবার এর সংখ্যা বেড়ে যাবে । 

ইউটিউব চ্যানেল থেকে ইনকাম করার জন্য প্রথমে আপনার অনেক অডিয়েন্সের প্রয়োজন হবে । অর্থাৎ আপনার নিয়মিত কিছু দর্শকের প্রয়োজন হবে । যারা আপনার ইউটিউব চ্যানেলের ভিডিও নিয়মিত দেখবে ।

আপনার দর্শকদের আপনি বিভিন্নভাবে মনিটাইজ করার মাধ্যমে টাকা ইনকাম করতে পারবেন ।

See also  ইউটিউব থেকে ভিডিও ডাউনলোড করার 3টি সেরা ওয়েব সাইট

কিভাবে ইউটিউব থেকে টাকা আয় করা যায়

আপনার ইউটিউব চ্যানেলে ভালো পরিমাণে দর্শক থাকলে । সেখান থেকে আপনি টাকা ইনকাম করতে পারবেন । 

টাকা ইনকাম করার জন্য আপনার ইউটিউব চ্যানেলে ভালো পরিমাণে অডিয়েন্স অর্থাৎ দর্শক থাকতে হবে । বেশি দর্শক থাকলে আপনি টাকা ইনকাম করতে পারবেন । 

আপনার দর্শক সংখ্যা যত বেশি হবে আপনার টাকা আয়ের পরিমাণও তত বেশি হবে । ইউটিউব থেকে টাকা ইনকাম করার কয়েকটি পদ্ধতি রয়েছে   যেগুলো ব্যবহার করে আপনার দর্শকদের আপনি মনিটাইজ করতে পারবেন । এবং সেখান থেকে টাকা ইনকাম করতে পারবেন ।

সেগুলো হল:

গুগল এডসেন্স

ইউটিউব থেকে ইনকাম করার জন্য সবচেয়ে জনপ্রিয় এবং মূল বিষয়টি হলো গুগল এডসেন্স । গুগল এডসেন্স এর মাধ্যমে গুগল আপনার ভিডিওর শুরুতে মাঝখানে এবং ভিডিও শেষে বিভিন্ন ধরনের এডভার্টাইজমেন্ট দেখাবে ।

এবং তার বদলে আপনাকে নির্দিষ্ট একটা টাকা দিবে । ইউটিউব চ্যানেলের ভিডিও ভিউ এর উপর নির্ভর করে আপনার টাকার পরিমাণ কমবে বাড়বে । বেশিরভাগ ইউটিউবার গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে ইউটিউব থেকে ইনকাম করে ।

গুগল এডসেন্স থেকে ইনকাম করার কিছু পূর্ব শর্ত রয়েছে । ইউটিউবে এডসেন্স অ্যাপ্রুভাল নিতে হয় । এ approval নেওয়ার জন্য অবশ্যই আপনার ৪০০০ ঘন্টা ওয়াচ টাইম থাকতে হবে ।

অর্থাৎ আপনার চ্যানেলের দর্শকদের দ্বারা আপনার চ্যানেলের ভিডিও ৪০০০ ঘণ্টা দেখতে হবে । youtube চ্যানেল মনিটাইজ করতে পারলে।  আপনার ইউটিউব চ্যানেলে ভিডিও ভিউস উপর নির্ভর করে আপনি টাকা ইনকাম করতে পারবেন ।

স্পন্সরশিপ

Google এডসেন্সের পর এই সবচেয়ে বেশি মানুষ স্পন্সরশিপের মাধ্যমে ইউটিউব থেকে টাকা ইনকাম করে । 

কোন একটি ব্র্যান্ডের কোন একটি প্রোডাক্ট বা অন্য কোন কিছু আপনার ভিডিওর মাধ্যমে আপনি প্রমোশন করিয়ে দিয়ে টাকা ইনকাম করবেন । আজকাল টিভিতে এডভেটাইজমেন্ট দেওয়ার মতো ইউটিউব ভিডিওতেও অনেকে পার্সোনালি অ্যাডভার্টাইজমেন্ট করে । এর ফলে ইউটিউব চ্যানেলের মালিক রেস্পন্সিপ এর মাধ্যমে ভালো পরিমাণে টাকা ইনকাম করতে পারে ।

See also  গ্রাফিক্স ডিজাইন কি ? কিভাবে গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখব

স্পন্সরশিপ নেওয়ার জন্য আপনার চ্যানেলে অনেক সাবস্ক্রাইবার এবং ভিউজ থাকতে হবে । কেননা ছোট ইউটিউব চ্যানেল গুলোতে কোন কোম্পানি তাদের প্রোডাক্টের প্রমোশন করাতে চাইবে না । তারা চাইবে বড় বড় ইউটিউব চ্যানেলের কাছে প্রোডাক্ট প্রমোশন করাতে । 

যাতে অনেক মানুষ তাদের প্রোডাক্ট সম্পর্কে জানতে পারে । গুগল এডসেন্সের পর সবচেয়ে জনপ্রিয় ইনকামের সোর্স স্পন্সর শিপ । এর মাধ্যমেও অনেক টাকা ইনকাম করা যায় ।

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর মাধ্যমেও ইউটিউব চ্যানেল থেকে ইনকাম করা যায় । আপনি কোন একটি প্রোডাক্ট এর প্রমোশন করিয়ে ভিডিও ডেসক্রিপশনে তার অ্যাফিলিয়েট লিংক যদি দেন এবং কেউ যদি ওই লিংক থেকে ওই প্রোডাক্টটি কিনে । 

আরো পড়ুন,

তাহলে আপনি তার একটি কমিশন পাবেন । এফিলিয়েট মার্কেটিং এর মাধ্যমে ইউটিউব থেকে খুব বেশি পরিমাণে ইনকাম করা যায় না । কেননা বেশিরভাগ মানুষই ইউটিউবে ভিডিও দেখে । কিন্তু ডেসক্রিপশন বক্স অতটা পরে দেখেনা ।

তবে আপনি যদি ঠিকমতো প্রমোশন করতে পারেন এবং আপনার ভিউয়ার্সকে কেনার জন্য রাজি করাতে পারেন । তাহলে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর মাধ্যমে আপনি ভালো পরিমান ইনকাম করতে পারবেন ।

মার্চেন্ডাইজ বা নিজস্ব প্রোডাক্ট বিক্রি 

অনেকেই ইউটিউব চ্যানেল শখের বসে শুরু করলেও, শেষের দিকে গিয়ে তাকে একটি বিজনেসে পরিণত করে ফেলে । এখনকার দিনে একটি ইউটিউব চ্যানেল একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে কোন অংশে কম নয় । 

অনেক ইউটিউবার রয়েছে যারা তাদের চ্যানেলের মাধ্যমে নিজস্ব কোন প্রোডাক্টের প্রমোশন করে তা বিক্রি করে । তবে নিজস্ব ব্র্যান্ড দাঁড় করানোর জন্য আপনার ইউটিউব চ্যানেলকে মোটামুটি বড় হতে হবে । 

তবে আপনি যদি ঠিকমতো প্রমোশন করতে পারেন এবং আপনার প্রোডাক্ট এর কোয়ালিটি ভালো হয় । তাহলে অবশ্যই আপনি আপনার ইউটিউব চ্যানেলের মাধ্যমেই আপনি একটি ব্যবসা ধারণ করিয়ে ফেলতে পারবেন ।

See also  ইউটিউব ভিডিও ডাউনলোড করার সেরা 3 টি অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ 

শেষ কথা

আজকের এই আর্টিকেলের মধ্যে আমি শুধু কিভাবে ইউটিউব থেকে টাকা আয় করা যায় এই সম্পর্কে বিস্তারিত লিখেছি । 

ইউটিউব চ্যানেল কিভাবে খুলতে হয় এই ব্যাপারে খুব বিস্তারিত লিখিনি । আপনি ইউটিউবে বিভিন্ন টিউটোরিয়াল দেখে আপনার youtube চ্যানেলটি খুলে ফেলতে পারবেন । তবে ইউটিউবিং করার সবচেয়ে মূল বিষয়টি হলো নিয়মিত ভিডিও তৈরি করা   এবং ভিডিওর কোয়ালিটি খুবই ভালো রাখা । 

কেউ যদি আপনার ভিডিও না দেখে, তাহলে কিন্তু আপনি ইউটিউব থেকে ইনকাম করতে পারবেন না ।

Leave a Comment

Share via
Copy link
Powered by Social Snap